শিরোনাম:
শিরোনাম:
তৃতীয় দিনের ন্যায় গাইবান্ধা সদরের মোল্লারচরের বন্যাতদের মাঝে ত্রান বিতরন গাইবান্ধা সদরের দুই ইউনিয়নের বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ ও শুকনো খাবার বিতরণ গোবিন্দগঞ্জে শিশুকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের মামলায় গ্রেপ্তার কোটা নিয়ে আপিল বিভাগে শুনানি বুধবার গাইবান্ধায় বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন ও বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরন বিজ্ঞাপনের জন্য ফি নিতে পারবে না বিআরটিএ: হাইকোর্ট নেপালে বন্যা-ভূমিধসে ১৪ জনের প্রাণহানি তিস্তা প্রকল্পে ভারত-চীন একসঙ্গে কাজ করতে রাজি: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী বগুড়ায় পানিতে ডুবে দুই বোনের মৃত্যু গাইবান্ধায় গৃহবধূর গোসলের ভিডিও ধারণের সময় পুলিশ সদস্য আটক
ঘোষণা:
আমাদের ওয়েবসাইটে স্বাগতম...

দুই বউয়ের টানাটানিতে ডোবায় ঝাঁপ দিলো স্বামী!

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৩১ বার পঠিত
প্রকাশের সময়: শনিবার, ৩০ মার্চ, ২০২৪, ১১:১৬ পূর্বাহ্ন

দুই বউয়ের মুখোমুখি ঝগড়াতে বাধ্য হয়ে স্বামীর ডোবায় ঝাঁপিয়ে পড়ার মত ঘটনা ঘটেছে। তবে ফায়ার সার্ভিসের উপস্থিতি টের পেয়ে নিজেই ডোবা থেকে উঠে পালিয়ে যান রাজু।  

শুক্রবার (২৯ মার্চ) বিকেলের দিকে সাভারের হেমায়েতপুরের চলন্তিকা হাউজিং এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বিকেল ৫টার পরপর ঝাঁপিয়ে পড়ে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে তিনি উঠে পড়েন।পাঁচ বছর আগের বউ রেখে সাত মাস আগে ফের বিয়ে করেছিলেন রাজু। দুই বউ মুখোমুখি হতেই শুরু হয় ঝগড়া। আর এমন পরিস্থিতিতে পালিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি ডোবায় ঝাঁপিয়ে পড়েন তিনি। অনেক খুঁজেও সন্ধান না মেলায় খবর দেওয়া হয় ফায়ার সার্ভিসে। তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে নিজেই ডোবা থেকে উঠে পালান রাজু। রাজু চলন্তিকা হাউজিং এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন।ওই ব্যক্তির স্ত্রী ও এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গত কয়েক মাস ধরে স্ত্রী শিমুকে নিয়ে চলন্তিকা হাউজিং এলাকায় বসবাস করে আসছিলেন রাজু। শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে শরীফা নামে আরেক নারী এসে দাবি করেন, তার সঙ্গে রাজুর পাঁচ বছর আগে বিয়ে হয়েছে। এক পর্যায়ে তিনজনের মধ্যে ঝগড়া বেধে যায়। এরই জেরে রাজু দৌড়ে পালিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি ডোবায় ঝাঁপ দেন। স্থানীয়রা তাকে খোঁজাখুঁজি করেও না পেয়ে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেওয়া হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে যায়। তবে তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে রাজু একাই উঠে পালিয়ে যান।  

রাজুর দ্বিতীয় স্ত্রী শিমু বলেন, আমি ওয়াশরুমে ছিলাম। বের হয়ে দেখি এক মহিলা আমার স্বামীর হাত ধরে টানাটানি করছে। তার দাবি সে আমার স্বামীর স্ত্রী। আমি আমার স্বামীকে ছাড়াতে গেলে সে সেখান থেকে দৌড়ে কচুরিপানা ভর্তি ডোবায় ঝাঁপিয়ে পড়ে। এরপর ৯৯৯ এ কল দিয়ে ফায়ার সার্ভিস ডাকা হলে সে নাকি উঠে চলে যায়। তবে বাসায় আসেনি।

সাভার ট্যানারি ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন লিডার মনজুরুল বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। তবে স্থানীয়রা জানান, সে একাই উঠে চলে গেছে। তাই ফিরে আসি।  

 Save as PDF


এ জাতীয় আরো খবর...
এক ক্লিকে বিভাগের খবর